নতুন মা আর নতুন বাবুর জন্য

নতুন মা আর নতুন বাবুর জন্য

By In undefined On 4/7/2020

প্রথম প্রথম মা হলে সব কিছুতেই টেনশন কাজ করে,তাই না? কী হবে না হবে, 
কীভাবে সামলাবো, কী কী লাগতে পারে এসব নিয়ে অনেক লম্বা সময় চিন্তা করে 
কাটাতে হয়। নতুন বাবুর জন্য কি কি লাগতে পারে সেই লিস্ট বানাতে বসে অনেক 
মা’ই হিমশিম খেয়ে থাকেন। আমরা সামান্য একটু সাহায্য করে মায়েদের সেই 
চিন্তাটা কিছুটা কমাতে চেষ্টা করেছি।

নতুন বাবুর কেনাকাটার একটা লিস্ট আমরা দিচ্ছি যেখানে আপনারা চাইলে প্রয়োজনমত কিছু যোগ বিয়োগ করতে পারেন।

 

১। নিমা: নরম সুতির কাপড়ের নিমা ১০-১২টা বানিয়ে নিতে পারলে ভাল হয়। তা 
নাহলে মার্কেটে এবং অনলাইনেও বর্তমানে রেডি মেইড নিমা পাওয়া যাচ্ছে।

 

২. ন্যাপি: যারা সব সময় ডায়াপার পড়াতে চাননা তারা ১৫-১৬ টা ন্যাপি রাখতে পারেন। অবশ্যই সেটা নরম সুতির কাপড়ের হতে হবে।

 

৩. রম্পার: রম্পার, ওয়ান্সি এবং নাইট স্যুট নিজের প্রয়োজন মত কিনে নিতে 
হবে ৪-৬-৮-১০ টা। কাপড়টা কম্ফোর্টেবল কিনা সেটা দেখে নিতে হবে। মোটা 
গেঞ্জির কাপড়ে গরমকালে বাচ্চার কষ্ট হতে পারে তাই পাতলা গেঞ্জির কাপড় 
গরমকালের জন্য ভাল হবে।

 

৪. র‍্যাপার: বাচ্চাকে ২/৩ মাস পর্যন্ত বাইরে নিতে হলে যেটাতে পেঁচিয়ে 
নেওয়া হয় সেটাকে র‍্যাপার বলে। যারা সোয়াডেল করেন অর্থাৎ বাচ্চাকে প্যাকেট 
এর মত করে পেঁচিয়ে রাখেন তাদের জন্যেও র‍্যাপার দরকার হয়। শুধুমাত্র বাইরে 
যাওয়ার জন্য ১-২ টা র‍্যাপারই যথেষ্ট।

 

৫। কাথা: যারা সব সময় ডায়াপার ব্যবহার করেন তাদের জন্য ৬-৮ টা কাথাতেই 
হয়ে যাওয়ার কথা। আর যারা কাথাতেই দিনের বেশিরভাগ সময় রাখতে চান তাদের জন্য 
১৮-২০ টা কাথা লাগবে। ছোট, মাঝারি এবং বড় তিন সাইজের।

 

৬। টাওয়াল: বাচ্চাদের বাথ টাওয়াল কিনতে পাওয়া যায়; হুডি টাওয়ালও বলে 
সেটাকে। সেটা একটা এবং মাঝারি সাইজের আরেকটি টাওয়াল রাখলে ভাল হয়।

 

৭. রুমাল/ওয়াশক্লোথ: বাচ্চাদের মোছানো এবং পরিষ্কার করার জন্য অনেক 
রুমাল /ওয়াশক্লোথ দরকার হয়। থাইল্যান্ডের একটা ওয়াশক্লোথ সেট পাওয়া 
যায়; ৮ পিস এক প্যাকেটে। এর দাম ও রিসোনেবল। এছাড়াও নরম পরিষ্কার কিছু কাপড়
 রাখতে পারেন হাতের কাছে।

 

৮. বিব: শুরুতে বিব না লাগলেও অনেক বাচ্চাই অনেক ছোট থাকতেই দুধ তুলে সেই জন্য ২/৩ টা বিব কিনে ফেলা যেতে পারে।

 

৯. ইউরিন ম্যাট: একটা ভাল মানের ইউরিন ম্যাট পছন্দ মত।

 

১০. বিছানা সেট: বর্তমানে কয়েক ধরনের বিছানা সেট কিনতে পাওয়া যায়। মশারি
 সহ, মশারি ছাড়া। যেটা ভাল লাগে। কেউ চাইলে পছন্দ মত বানিয়েও নিতে পারেন।

 

১১. ডায়াপার: একদম শুরুতে ডিস্পোসেবল ডায়াপার বেল্ট সিস্টেম টা ব্যবহার 
করতে হয়। মল্ফিক্স, হাগিস, নিওকেয়ার, সুপারমম ভাল মানের ব্র‍্যান্ড। এরপর 
একটু বড় হলে ক্লোথ ডায়াপার ও ব্যবহার করতে পারেন।

 

১২. নেইল কাটিং সেট: বাচ্চার নখ কয়েকদিন পরই কাটা লাগে, তাই এটা খুবই জরুরি।

 

১৩. হেয়ার ব্রাশ: বাবুর মাথা নরম থাকে শুরুতে তাই চিরুনি ব্যবহার না করে
 হেয়ার ব্রাশ ব্যবহার করলে ব্যাথা পাওয়ার বা মাথায় চাপ খাওয়ার সম্ভাবনা 
থাকে না।

 

১৪. ফিডার: ইমার্জেন্সির জন্য ভাল ব্র‍্যান্ডের একটা ছোট সাইজের ফিডার কিনে রাখলে ভাল হয়।

 

১৫. পাম্প: অনেকের দুধ পেতে সমস্যা হয়, কিছু বাবু আবার খেতে পারেনা। তাই
 কেউ চাইলে পাম্প মেশিনটাও কিনে ফেলতে পারেন। ফারলিন অথবা এঞ্জেল 
কোম্পানিরটা বেশ ভাল।

 

১৬. বটল ক্লিনার: এটা যারা ফিডারে দুধ খাবে তাদের জন্য মাস্ট! বটল 
ক্লিনার এর ভেতর বেস্ট হল কোডোমো। একটা কথা অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে 
প্লাস্টিকের ফিডার কখনোই ফুটন্ত পানিতে দেওয়া যাবে না। এটা শরীরের জন্য 
মারাত্বক ক্ষতিকর। তাই কোডোমো বটল ক্লিনার দিয়ে কুসুম গরম পানিতে ধুয়ে 
ফেললে সেটা থেকে গন্ধ এবং ব্যাক্টেরিয়া দুটোই দূর হয় আলহামদুলিল্লাহ্‌!

 

১৭. ফিডার ব্রাশ: একটা ভাল মানের ফিডার ব্রাশ ফিডার এর সাইজ অনুযায়ী কিনতে হবে।

 

১৮. পাউডার/লোশন পাউডার: প্রথম এক মাস বাচ্চাদের তেমন কিছু না মাখালেও 
চলে, তবে গরম বেশি পড়লে অনেকেই পাউডার ব্যবহার করে থাকেন। নিউবর্ণদের জন্য 
কোডোমো নিউবর্ণ+ পাউডার টা বেশ ভাল তবে পাউডার না দিয়ে যদি লোশন পাউডার 
দিতে চান তবে সেটা বেশি ভাল হয়, এতে স্কিনের ময়েশ্চার ঠিক থাকে। লোশন 
পাউডার মাদার কেয়ার অথবা কোডোমো টা নিতে পারেন।

 

১৯. লোশন/তেল: শীত ছাড়া তেল ব্যবহার করলে বাচ্চার জন্য সেটা কম্ফোর্টেবল
 নাও হতে পারে। শীতে বাচ্চাদের জন্য তৈরি ডাবুর এর লাল তেল টা অনেক ভাল এটা
 খুবই লাইট একটা তেল দেওয়ার পর গায়ে চ্যাটচ্যাটে অনুভূতিটা হয়না একদমই। 
এছাড়াও অলিভ অয়েল ব্যবহার করতে পারেন তবে এটা অনেক ভারী। তেল দেওয়ার আগে 
শিওর হয়ে নিতে হবে বাচ্চার এ্যালার্জির সমস্যা আছে কিনা। কিছু কিছু তেল এ 
এ্যালার্জি বারতে পারে।

 

২০. হেয়ার আ্যান্ড বডি ওয়াশ: মাদার কেয়ার, এ্যাভিনো অথবা কোডোমো বাজারে সহজলভ্য।

 

২১. কটন বলস: প্রথম প্রথম যারা ওয়াইপ্স ব্যবহার করতে চাননা তারা কটন বলস
 কিনে নিতে পারেন। কুসুম গরম পানিতে কটন বলস চুবিয়ে বাচ্চাকে পরিষ্কার করা 
সহজ হয়।

 

২২. ফ্লাস্ক: গরম পানি সব সময় হাতের কাছে দরকার হয়, তাই এটা খুবই জরুরি।

 

২৩. বাটি: বাচ্চাকে মোছানোর জন্য আলাদা বাটি রাখতে হবে। খাবার রাখার বাটিতে পানি নিয়ে বাচ্চাকে মোছানো যাবে না!

 

২৪. অর্গানাইগার বা ঝুড়ি: ছোট বাবুর অনেক টুকটাক জিনিস হাতের কাছে দরকার
 হয়। একটা নির্দিষ্ট জায়গায় না রাখলে খুজে পেতেও কষ্ট হয় তাই প্লাস্টিকের 
ড্রয়ার অথবা ঝুড়ি কেনা যেতে পারে।

 

২৫. মশারি: আমাদের দেশে মশা একটা বড় সমস্যা তাই বাবুর জন্য মশারি মাস্ট!

 

২৬. ডায়াপার র‍্যাশ ক্রিম: ইউরিন থেকে স্কিনকে রক্ষা করতে ডায়াপার 
র‍্যাশ ক্রিম মাস্ট! নয়তো যত ভাল মানের ডায়াপার ব্যবহার করা হোক না কেন শ 
হয়ে যেতে পারে। র‍্যাশ ক্রিম হিসেবে সুডোক্রিম অথবা ভার্জিন কোকোনাট অয়েল 
ব্যবহার করা যেতে পারে।

 

২৭. গামলা বা বাথার: বাচ্চাকে গোসলের জন্য যে কোন একটা কিনলেই হবে।

 

২৮. ওয়াইপ্স: ওয়াইপ্স খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটা জিনিস। যেন তেন ওয়াইপ্স 
ব্যবহারের কারনে বাচ্চার ইচিং অথবা র‍্যাশ হতে পারে। মল্ফিক্স, পজি 
সেন্সিটিভ, ফ্রেশমেকার ইত্যাদি ভাল মানের ওয়াইপ্স দেখে কেনাটা জরুরি।

 

২৯. হেক্সাজল: বাচ্চাদের প্রথম দুই তিন মাস খুব সেন্সিটিভ সময়। এ সময়ে 
অন্তত যেই বাচ্চাকে কোলে নিবে অবশ্যই আগে হেক্সাজল দিয়ে হাত পরিষ্কার করে 
নিতে হবে। এমনকি মা কেও এটা মেইনটেইন করতে হবে। আমরা অনেক সময় মোবাইল হাতে 
নিয়েই আবার বাচ্চাকে নেই, মনে রাখতে হবে টয়লেট সিটে যেই পরিমান জীবাণু থাকে
 মোবাইল ফোনে সেই পরিমাণ বা তার চেয়ে বেশিও থাকতে পারে! তাই বাচ্চার 
কেনাকাটা করার সময় অবশ্যই বড় দেখে এক বোতল হেক্সাজল কিনে নিতে হবে। এগুলা 
ছাড়াও নিজের প্রয়োজনমত আরো কিছু যোগ বিয়োগ করা যেতে পারে। আশা করি কিছুটা 
হেল্প করতে পেরেছি।

 

সাকিবা আহমেদ

ফিচার রাইটার, মডেস্টবিডি

Continue Shopping Order Now